• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ২২শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৮ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ১২ই জিলকদ, ১৪৪২ হিজরি

বিকাল ৪:২৩

অবুঝ সন্তানকে গৃহকর্মীর কাছে রেখে ঝুঁ’কি নিয়ে সেবা দিচ্ছেন চিকিৎসক দম্পতি


Share with friends

চারদিকে এখন ক’রোনাভা’ই’রাস আ’তঙ্ক। দেশে বেড়েই চলছে আ’ক্রা’ন্ত রো’গীর সংখ্যা। প্রতিদি’ন মৃ’ত্যু’র তা’লিকা’য় যোগ হ’চ্ছে নতু’ন নতুন নাম।

উ’দ্বেগ আর উৎকণ্ঠা’য় কাটছে সবার জীবন। এমন ভ’য়া’বহ প’রিস্থিতি’র মধ্যেও জীব’নের ঝুঁ’কি নিয়ে কাজ করে যেতে হ’চ্ছে চিকিৎসক’সহ স্বাস্থ্য’কর্মীদে’র।

করো’না আ’ত’ঙ্কে দেশ-বি’দেশে’র অনে’ক চিকিৎসক নি’জের জীব’নের ভ’য়ে তা’দের দায়িত্ব থেকে সরে দাঁ’ড়িয়ে’ছেন। ঠিক এমন কঠিন স’ময়ে কো’লের স’ন্তানকে রেখে জী’বনের ঝুঁ’কি নিয়ে স্বা’স্থ্যসে’বা দিয়ে যা’চ্ছেন পাবনার এক চিকিৎসক দম্প’তি।

এই দ’ম্পতি হ’লেন, ২৫০ শ’য্যা’বিশিষ্ট পাবনা জে’নারেল হা’সপাতা’লের মেডি’কেল অফিসার ডা. মো. জা’কা’রিয়া খান মানিক এবং তাঁর স’হধ’র্মিণী ‘আটঘ’রিয়া উপজে’লা স্বাস্থ্য কম’প্লেক্সের মেডি’কেল অফিসা’র ডা. বি এম মা’রজিয়া। তাদের বা’ড়ি জে’লার ভাঙ্গু’ড়া উপজে’লার দিলপা’শার ইউ’নিয়নের বেতু’য়ান গ্রামে। তা’দের রয়েছে আ’ট মাস বয়’সের এক ক’ন্যাস’ন্তান। তার নাম জুয়া’ইরি’য়া।

চিকিৎস’ক দ’ম্পতি জা’নান, প্রতিদি’ন স’কাল হলেই আ’দ’রের এ’কমা’ত্র স’ন্তান’টিকে বা’সায় রেখে কর্ম’স্থ’লে চলে যেতে হয় তাদের। এ স’ময় শি’শু’টির দেখা’শো’না করেন তা’দের বাড়ির গৃহ’ক’র্মী আক’লিমা খাতুন।

চিকিৎসক বি এম মা’র’জিয়া বলেন, ‘মে’য়ে জু’য়াই’রিয়া এখন অনেক কি’ছুই বুঝ’তে শিখে’ছে। মা’য়ের অ’ভাব তা’কে দা’রুণ পী’ড়া দেয়। চার দেওয়ালে’র মা’ঝখা’নে কচি চোখে সে বার’বার মা’কে খুঁ’জ’তে থাকে। কাঁ’দতে কাঁ’দতে এক’সময় সে আক’লিমা’র কো’লেই ঘুমি’য়ে পড়ে। তারপরও নিজে’দের ‘দায়ি’ত্ব থেকে আ’ম’রা সরে আ’সিনি।’

মা’রজি’য়া আ’রো বলেন, ‘সন্তা’ন নি’য়ে ভ’য় তো লা’গেই। ত’বে য’তটা সম্ভ’ব সাব’ধানতা অ’বল’ম্বন করে সে’বা দিয়ে যাচ্ছি। দেশে’র এমন ক’ঠিন পরি’স্থি’তিতে মা’নুষের পা’শে দাঁড়া’নোটা আমা’দের বড় কর্তব্য।’ তিনি বলেন, ‘শুধু চি’কিৎসক নন, এখন সবা’র উ’চিত নিজ নিজ জায়’গা থেকে দে’শের মানু’ষের পাশে দাঁড়া’নো।’

এ ব্যা’পারে ডা. মো. জাকা’রিয়া খান মানি’ক বলেন, ‘অ’সু’স্থ মানু’ষের সে’বা দেও’য়া আমা’দের নৈতি’ত দায়ি’ত্ব। আমা’র শি’শু’সন্তা’নটির প্রতি আমা’র মম’ত্ববো’ধ, দা’য়ি’ত্ব-কর্তব্য যেমন রয়ে’ছে তেমনি সেবা নিতে আ’সা মানু’ষগুলোর দা’য়িত্বও আমি কো’নোভা’বেই এড়ি’য়ে যেতে পারি না।’

পাবনা জে’লা’ সি’ল সা’র্জন ডা. মেহে’ ইকবাল ব’লেন, ‘চিকিৎসা এ’কটি মহৎ পেশা। এখানে নি’জের চি’ন্তা ক’রার আ’গে রো’গীর চি’ন্তা কর’তে হয়। তা ছা’ড়া পাবনার চিকিৎস’করা আগে থে’কেই তাদের দা’য়িত্ব পা’লন করে আ’সছে।’