• ঢাকা
  • বুধবার, ২৫ নভেম্বর, ২০২০ | ১০ অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ | ১০ই রবিউস সানি, ১৪৪২ হিজরি

দুপুর ২:০৪

গৃহকর্মী ভিসায় সৌদি গিয়ে পাল্টে গেল সালমার ‘চরিত্র’।


Share with friends

যে অ্যাজেন্সিতে কাজ করার সুযোগ পাবেন, তা হয়তো তিনিও ভাবেননি। আর এতেই ভাগ্যের চাকা খুলে যায় তার,

Home2 Side ads

তবে অন্ধকার নেমে আসে তার অধীনে থাকা অন্য গৃহকর্মীদের জীবনে। চটপটে সালমা’র চাকরি মেলে সৌদি আরবের দাম্মামে আল- সাফার নামে

Home2 Side ads
Home2 Side ads

একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে। সেখানে বাংলাদেশ থেকে সৌদিতে যাওয়া অন্য গৃহকর্মীদের সহযোগিতা ও দেখাশোনার দায়িত্ব পান তিনি।

মূলত বাংলাদেশ থেকে যেসব গৃহকর্মী সৌদিতে যান তাদের সার্বিক খোঁজ-খবর রখার জন্যই সালমাকে নিয়োগ দেয় আল-সাফার কর্তৃপক্ষ।

সৌদির বেসরকারি প্রতিষ্ঠানগু’লো সরকারের স’ঙ্গে চুক্তি অনুযায়ী মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশে গৃহকর্মী নিয়োগ দিয়ে থাকে। বিশ্বের বিভিন্ন দেশেও

তাদের শাখা-অফিস রয়েছে। এসব কোম্পানি ভিসা সরবরাহ করে বাংলাদেশ থেকে গৃহকর্মী এনে বাসা-বাড়িতে কাজের ব্যবস্থা করে দেয়।

গৃহকর্মী হিসেবে সৌদিতে গেলেও গৃহকর্মী সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানে চাকরি মেলায় বদলে যায় বাংলাদেশি সালমা’র চেহারা।

গৃহকর্মীদের বিপদ-আপদ, দেখাশোনা ও সার্বিক খোঁজখবর নেয়ার দায়িত্ব পান সালমা। আর এই দায়িত্ব যেন পাল্টে দেয় তাকে।

প্রতিষ্ঠানের ক’র্তা পদে বসে অন্যান্য গৃহকর্মীদের ওপর পাশবিক নি’র্যাতন চালাতে শুরু করেন তিনি। প্রতিষ্ঠানের সরবরাহ করা গৃহকর্মীরা

সুযোগ-সুবিধা এবং বেতন ঠিক মতো পাচ্ছেন কি-না ইত্যাদি বি’ষয়ে কর্তৃপক্ষকে জানানোই ছিল সালমা’র প্রধান কাজ। কিন্তু এসবের

কোনো তোয়াক্কাই করেননি তিনি। সালমা যেসব অ’পকর্ম করতে শুরু করেন তা প্রতিষ্ঠানের নিয়োগের শর্তের পুরো উল্টো। অফিসকে খুশি

রাখার জন্য দায়িত্বের বাইরে নিজের মতো পালন করছেন ভ’য়’ঙ্কর কিছু দায়িত্ব। যা শুনলে হয়তো অনেকেই বিশ্বা’স করবেন না।

ওই প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে সৌদিতে আসা বাংলাদেশি গৃহকর্মীরা বেশ কিছু অ’ভিযোগ করেছেন। তারা তুলে ধরেছেন সালমা’র অ’ত্যাচারের কাহিনী।

সালমা’র গৃহকর্মীদের মা’রধর, গা’লিগা’লা’জের বেশ কয়েকটি ভিডিও ফুটেজ পাওয়া গেছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন গৃহকর্মী সালমা’র নি’র্যাতন-নি’পী’ড়নের কথা বলতে গিয়ে কা’ন্নায় ভেঙে পড়েন।

একজন গৃহকর্মী বলেন, এমন কোনো অ’ত্যাচার নেই যা সালমা করতেন না। মা’রধর, গা’লিগা’লা’জের ভিডিও ধারণ করে ছে’লে বন্ধুদেরও দেখাতেন সালমা।

অ’ভিযোগের ভিত্তিতে এ প্রতিবেদক সালমা’র স’ঙ্গে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ইমোতে কথা বলার চেষ্টা করেন। সালমা তার বিরু’দ্ধে আনা সব অ’ভিযোগ মিথ্যা বলে দাবি করেন। তবে ভিডিওর কথা বলতেই নীরব হয়ে যান তিনি।

অন্যদিকে, নি’র্যাতিত গৃহকর্মীরা সালমাকে দেশে ফিরিয়ে গ্রে’ফতারের দাবি জানান। গৃহকর্মীদের মা’রধরের অ’ভিযোগের ব্যাপারে জানতে চাইলে দূতাবাসের এক কর্মক’র্তা বলেন, খোঁজখবর নেয়া হচ্ছে। অ’ভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেলে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান ওই কর্মক’র্তা।

single page ads 3