• ঢাকা
  • শনিবার, ১৯শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৫ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ৯ই জিলকদ, ১৪৪২ হিজরি

বিকাল ৩:৪৫

‘ছেলেকে নিয়েই সময় কাটছে, ছবি আঁকাটা আবার শুরু করেছি’: প্রিয়াঙ্কা


Share with friends

করোনার দৌলতে Lockdown, Home Quarantine এই শব্দগুলোর সঙ্গে আমা’রা প্রত্যেকেই আজ পরিচিত। করোনার মতো বিশ্বমহামা’রীর প্রকোপ থেকে বাঁচতে গৃহব’ন্দি থাকা ছাড়া আর উপায়ই বা কী’! বলি থেকে টলি সমস্ত ব্যস্ততম তারকাকেও আজ ঘরব’ন্দি থাকতে হচ্ছে। একই পরিস্থিতিতে দিন কাটছে টালি পাড়ার জনপ্রিয় অ’ভিনেত্রী প্রিয়াঙ্কা সরকারের। Home Quarantine-এ কী’ভাবে সময় কা’টাচ্ছেন প্রিয়াঙ্কা। সেই সমস্ত কথাই জানালেন Zee ২৪ ঘণ্টা ডট কম-কে।

প্রিয়াঙ্কা জানান, ”বাড়িতে রয়েছি। বাড়ির বাইরে বের হওয়ার তো এখন প্রশ্নই উঠছে না। মোবাইল নিয়েই অনেকটা সময় কাটছে। বিভিন্ন ওয়েব সিরিজ দেখছি, সিনেমা দেখছি। আর চেষ্টা করছি যেন নরম্যাল রুটিন মেনে চলার। বাড়িতেই কার্ডিও করে যতটা ফিট থাকা যায় চেষ্টা করছি। আর সহ’জ (ছে’লে) তো রয়েছেই, ওকে সময় দিচ্ছি। সহ’জের তো স্কুল শুরু হয়ে গিয়েছে। ওর এখন যদিও ক্লাস ওয়ান। ৮ তারিখ থেকে ওর সেশন শুরুর কথা ছিল। সেটা তো হল না, তাই অনলাইনে ক্লাস হচ্ছে ওর।

প্রচুর হোমওয়ার্ক দিচ্ছে, সেগুলো ওকে করাতে হচ্ছে। ও তো এমনি পার্কে খেলতে যেত, একটু সাইকেল চালাতো, সেগুলো তো হচ্ছে না, তাই ওকে ব্যস্ত রাখতে হচ্ছে। আমাকেই সহ’জের সঙ্গে খেলতে হচ্ছে, গল্পের বই পড়ে শোনাতে হচ্ছে, এভাবেই কাটছে। তাছাড়া আমা’র দুটো পোষ্য শ্যাডো আর হোপ, ওদের সঙ্গেও কাটছে বেশকিছুটা সময়। ”

প্রিয়াঙ্কা আরও জানান, ”আমা’র ছোটবেলার কিছু পছন্দের সিনেমা আমি আবারও দেখছি, সহ’জকেও দেখাচ্ছি। যেমন Charlie And The Chocolate Factory, Matilda, হীরক রাজার দেশে, এবং চার্লি চ্যাপলিন-এর কিছু সিনেমা। আবার এই সময়টাকে কাজে লাগিয়ে আমি আবারও ছবি আঁকছি। ছবি আঁকা’টা নতুন করে অভ্যাসের মধ্যে নিয়ে আসার চেষ্টা করছি। পোট্রেট আঁকা’টা আমা’র পছন্দের। এছাড়া বাড়ির কাজ তো করতেই হচ্ছে এই সময়।”

দৃষ্টিশক্তি হারিয়ে ফেলছেন! আশ’ঙ্কায় মায়ের সঙ্গে ছোটবেলার স্মৃ’তি হাতরাচ্ছেন অমিতাভ
করোনা প্রা’ণ কাড়লো ব্রিটিশ অ’ভিনেত্রী হিলারি হিথ-এর

প্রিয়াঙ্কার কথায়, ”চিন্তা হচ্ছে বাবা-মা-কে নিয়ে। বাবা-মা আর বোন বেহালার বাড়িতে রয়েছে। আমি থাকি কামালগাজির ফ্ল্যাটে। ওদেরকে এই পরিস্থিতিতে শিফট করিয়ে আনা সম্ভব হয়নি। তবে বোন বাবা-মায়ের সঙ্গে আছে। বোন উচ্চ-মাধ্যমিক দিচ্ছিল, তো ওর দুটো পরীক্ষা বাকি রয়ে গিয়েছে। দেখা যাক, কী’ হয়…। এই লকডাউন উঠলে বাবা-মায়ের কাছে আগে যাবো। তবে এখন আপাতত ভিডিয়ো কলে কথা হচ্ছে। আর এমনি ফোন কল তো দিনে ৩-৪বার হচ্ছেই। ”