• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ২৪শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১০ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ১৪ই জিলকদ, ১৪৪২ হিজরি

রাত ২:০৩

জয়ার জন্য ধর্মান্তরিত হতে চেয়েছিলেন সৃজিত!


Share with friends

কলকাতার একটি গণমাধ্যম জয়া আহসানের বিশাল এক স্টোরি ছেপেছে। সেখানেই নির্মাতা সৃজিতের বক্তব্য নিয়েছে পত্রিকাটি। এরপর সেখানে বলা হয় সৃজিত নাকি জয়া আহসানের জন্য ধ’র্ম পরিবর্তন করতেও রাজি ছিলেন।

কিন্তু শেষ পর্যন্ত কেন এই স’ম্পর্ক ভেঙে গেল সে বিষয়গুলো আর সামনে আসেনি। জয়া স’ম্পর্কে কলকাতার বিভিন্ন নির্মাতার অ’ভিমত নেওয়া হয় প্রতিবেদনে।

যেমন পরিচালক কৌশিক গঙ্গোপাধ্যায় বললেন, ‘জয়া ইন্ডাস্ট্রিতে এসেছেন দেরিতে। ধন্যবাদ অরিন্দম শীলকে যিনি জয়াকে খুঁজে বের করেছিলেন। ‘আবর্ত’-য় কাজ করতে গিয়ে ওকে আলাদা মনে হয়েছিল। সৌন্দর্যের সঙ্গে একটা ডিগনিটি মানুষ খোঁজে, সেটা পরিণত বয়সেই সম্পূর্ণতা পায়। জয়ার মধ্যে সেটাই আছে।

সৃজিত ওকে দিয়ে চ’মৎকার কাজ করিয়েছে। শিবুও। অ’তনুও করাচ্ছে। ম্যাচিওর অ’ভিনেত্রী হওয়ার জন্য ওকে নিয়ে নিশ্চয়ই আরও চরিত্র লেখা হবে।’

আনন্দবাজার নামে ওই গণমাধ্যম সৃজিতের বক্তব্য প্রকাশ করে। ‘চরিত্রর চেয়েও আমা’র মনে হয়, যে ভাবে স্ক্রিপ্ট বেছে বেছে ছবি করে জয়া তাতে ও অনেককে পেরিয়ে যাচ্ছে। ম্যাচিওরড স্ক্রিপ্ট। ওর নানা রকম লুক। যে কোনও চরিত্র অ্যাডপ্ট করে ফেলতে পারে সহ’জে। দুই বাংলার ডায়ালেক্টও অসম্ভব ভাল বলতে পারে।’

জয়াকে এভাবেই বিশ্লেষণ করলেন তাঁর ‘এক যে ছিল রাজা’র পরিচালক সৃজিত মুখোপাধ্যায়। সৃজিতের সঙ্গে জয়ার প্রে’মের স’ম্পর্ক নিয়ে একসময় গুঞ্জন উঠেছিল টলিউডে। শোনা যায়, সৃজিত নাকি জয়ার জন্য ধ’র্মান্তরিতও হতে চেয়েছিলেন!

বাংলাদেশের শোবিজ অঙ্গনের জনপ্রিয় অ’ভিনেত্রী জয়া আহসান হুট করেই কলকাতায় ছবিতে অ’ভিনয় শুরু করেন। ২০১৫ সালে কলকাতার ‘রাজকাহিনি’ ছবিতে অ’ভিনয় করেন জয়া। আর এ ছবির নির্মাতা ছিলেন সৃজিত। ছবি করতে গিয়েই জয়ার সঙ্গে সৃজিতের প্রে’মের গুঞ্জন ওঠে।