• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ২২শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৮ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ১২ই জিলকদ, ১৪৪২ হিজরি

বিকাল ৩:৫৫

মৃতের সংখ্যায় স্পেনকে ছাড়াল যুক্তরাষ্ট্র, আক্রান্ত পৌনে ৫ লাখ


Share with friends

প্রকাশিত: ৯:২১ পূর্বাহ্ণ, ১০ এপ্রিল ২০২০

করোনায় যুক্তরাষ্ট্রে নতুন করে ১২০০ মানুষের মৃত্যু হয়েছে। ইউরোপের দেশ স্পেনে প্রাণ গেছে ৪৪৬ জনের। এদিকে, ইতালিতে নতুন করে আরও ২ বাংলাদেশির মৃত্যু হয়েছে। ফলে সারাবিশ্বে মৃতের সংখ্যা ৯৫ হাজার ছাড়িয়েছে, যা আজই ১ লাখ ছাড়িয়ে যাবার শংকা রয়েছে। আক্রান্তের সংখ্যা ১৬ লাখ ৩ হাজারের বেশি। এদিকে মহামারি ঠেকাতে ব্যর্থতার দায়ভার বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার উইপর দিয়েছেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। গতকাল ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে (যুক্তরাষ্ট্র) করোনায় আক্রান্ত হয়ে আরও ১৮৯৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। একই সময়ে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৩৩ হাজার ৪০৬ জন। এর ফলে মৃতের সংখ্যায় স্পেনকে ছাড়িয়ে ইতালির পরেই অবস্থান দেশটির।

তথ্য অনুযায়ী, যুক্তরাষ্ট্রে করোনাভাইরাস সংক্রমিত কোভিড-১৯ রোগে আক্রান্ত রোগীর এখন মোট সংখ্যা ৪ লাখ ৬৮ হাজার ৫৬৬ জন। প্রতিদিন এই সংখ্যা আশঙ্কাজনক হারে বাড়েছে। আর বর্তমানে মৃতের সংখ্যা ১৬ হাজার ৬৯১ জন।

করোনায় সবচেয়ে মৃত্যু বেশি ইউরোপ অঞ্চলে। এরইমধ্যে সেখানে মারা গেছেন ৭০ হাজারের বেশি মানুষ। স্পেন-ইতালি-যুক্তরাজ্য-ফ্রান্স-জার্মানি-এ ৫ দেশেই, আক্রান্ত প্রায় ৭ লাখ। তবে দেশের হিসেবে সবচেয়ে ভয়াবহ সময় পার করছে যুক্তরাষ্ট্র। ৮ এপ্রিল পর্যন্ত মাত্র ১৯ দিনে দেশটিতে সংক্রমণ বেড়েছে ৩০ গুণ। যেখানে মহামারির অন্যান্য কেন্দ্রস্থলে সংক্রমণ লাখের কোঠা ছাড়াতে সময় লাগে, এক-দেড় মাসের বেশি। যুক্তরাষ্ট্রে পরিস্থিতির এমন ভয়াবহতার জন্য বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ওপর দায় চাপিয়েছেন, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। সংস্থাটিতে, আর্থিক অনুদান বন্ধেরও হুমকি দিয়েছেন তিনি। জবাবে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলছে, ‘মহামারির মতো ভয়ঙ্কর বিষয়কেও রাজনৈতিক হাতিয়ার করছে কেউ কেউ।’

ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, ‘বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার কারণেই আজ এমন পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। চীনের ভুলভাল তথ্যের ওপর ভরসা করেছে সংস্থাটি। যখন আমি চীনের সাথে ফ্লাইট চলাচল বন্ধ করলাম, তখন সংস্থাটি আমার সমালোচনা করেছে। তারা জানেই না কখন কিসে গুরুত্ব দিতে হয়।’ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মহাপরিচালক তেদ্রোস আধানম বলেন, ‘এই সংকটের মধ্যে ভাইরাস নিয়ে রাজনীতির ফল হবে মৃত্যুর মিছিল আরও বড় হওয়া। নির্বাচনে রাজনৈতিক স্কোর বাড়াতে কোভিড-১৯ ইস্যুর ব্যবহার মানে আগুন নিয়ে খেলা করা। বিপজ্জনক এই ভাইরাসের বিরুদ্ধে চীন-যুক্তরাষ্ট্রের মতো শক্তিশালী দেশগুলোর ঐক্যের সময় এটা।’

আরএএস/সাএ