• ঢাকা
  • শনিবার, ১৯শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৫ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ৯ই জিলকদ, ১৪৪২ হিজরি

বিকাল ৩:৫১

সেচ্ছাসেবকলীগ কর্মীকে পিটিয়ে ত্রান ছিনতাইয়ের টেষ্টা


Share with friends

প্রকাশিত: ১০:৩৫ পূর্বাহ্ণ, ৯ এপ্রিল ২০২০

ময়মনসিংহ নগরীর সিটি কর্পোরেশন এলাকায় সেচ্ছাসেবক লীগ কর্মী মোবারক হোসেনকে (২৫) পিটিয়ে ত্রান ছিনতাইয় চেষ্টার ঘটনা ঘটেছে। আহত মোবারক হোসেন ৩১ নং ওয়ার্ডের খালপাড় এলাকার মোসলেম উদ্দিনের ছেলে। তিনি ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চাকরী করেন এবং সে ৩১নং ওয়ার্ডের সেচ্ছাসেবক লীগ কর্মী বলে জানা গেছে। মঙ্গলবার (৭ এপ্রিল) রাত ৮টার দিকে সিটি কর্পোরেশন ৩১ নং ওয়ার্ডের খালপাড় এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

পরে বৃহস্পতিবার (৮ এপ্রিল) দুপুরে ৫ জনের নামে ও ৭ জনকে অজ্ঞাতনামা আসামী করে কোতোয়ালী মডেল থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়। ৩১ নং ওয়ার্ড সেচ্ছাবেকলীগের যুগ্ম আহব্বায়ক সোহাগ মিয়া বলেন, দেশের অঘোষিত লকডাউন চলছে। এ অবস্থায আমরা এলাকার গরিব দুখি মানুষের জন্য ময়মনসিংহ জেলার নেতৃবৃন্ধের কাছ থেকে কিছু কিছু ত্রান সহায়তা আবেদন করে এনে এলাকার গরিব দুখি মানুষের মাঝে বিলি করি।

এ অবস্থায় মঙ্গলবার (৭ এপ্রিল) মহানগর আওয়ামীগের সহ-সভাপতি ও সাবেক চেয়ারম্যান মোর্শেদুল আলম জাহাঙ্গীর কিছু ত্রান সহায়তা দেন। পরে এগুলো নিয়ে ক্লাবে আসতেই ছিনতাই চেস্টার ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় জড়িতদের গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় এনে বিচার দাবি করেন তিনি।

আহত মোবারক হোসেন বলেন, মঙ্গলবার (৭এপ্রিল) সন্ধার পর মহানগর আওয়ামীগের সহ-সভাপতি ও সাবেক চেয়ার মোর্শেদুল আলম জাহাঙ্গীর খালপাড় কান্দাপাড়া এলাকার গরিব দুখি মানুষের জন্য ত্রান সহায়তা আনতে তার বাড়িতে যেতে বলেন, পরে আমি তার বাড়িতে গিয়ে ত্রান সামগ্রী ভ্যান গাড়িতে করে আমাদের ক্লাবের সামনে আসতেই পার্শবর্তী এলাকার ১০/১২ জন বখাটে ছিনতাইয়ের উদ্দেশ্যে আমার উপর হামলা চালায়। এ সময় আমার ডাক চিৎকারে ৩১ নং ওয়ার্ড সেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ম আহব্বায়ক সোহা মিয়া, রবিউল মিয়া, সেচ্ছাসেবক লীগের সদস্য শাহেদ মিয়াসহ অন্যান্য নেতাকর্মীরা এগিয়ে আসলে তারা পালিয়ে যায়। স্থানীয়রা কোতোয়ালী থানা পুলিশকে খবর দিলে ঘটনাস্থল পরিদশন করে আমাকে চিকিৎসা নেয়ার পরামর্শ দেয়। পরে আমাকে আহত অবস্থায় ময়মনসিংহ মেডিকেল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ছুটি দিয়ে দেয়। এ বিষয়ে অভিযুক্ত কারো সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। তবে, তাদের একজন অভিভাবক দুলাল মিয়া নামে একজনকে ফোন দিলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

এ বিষয়ে ময়মনসিংহ মহানগর আওয়ামীগের সহ-সভাপতি ও সাবেক চেয়ার মোর্শেদুল আলম জাহাঙ্গীর বলেন, ৩১ নং ওয়ার্ডের নেতাকর্মীদের মাধ্যমে খালপাড় কান্দাপাড়া এলাকায় গরিব দুখিদের জন্য কিছু ত্রান সহায়তাপাঠিয়েছিলাম। ত্রান নিয়ে যাওয়ার পর ছিনতাই চেস্টার মত একটি জঘন্য ঘটনা ঘটে। যা খুব লজ্জার। তবে, যে বা যাড়াই এমন কাজ করেছে তাদের গ্রেপ্তারের দাবি করেন তিনি।

অভিযোগ পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে কোতোয়ালী মডেল থানার ওসি (তদন্ত) মুশফিকুর রহমান বলেন, প্রযোজনীয় তদন্ত করে ঘটনার সাথে জড়িত সকলে গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনা হবে। এ ঘটনায় যত তাড়াতাড়ি সম্ভব অভিযোগটি মামলা হিসাবে রুজু করা হবে।

এআইআ/এইচি